বরিশাল-খুলনা মহাসড়কের পিরোজপুরের কঁচা নদীর বেকুটিয়া পয়েন্টে নির্মাণ করা হয়েছে সেতুটি । সেপ্টেম্বরে চালু হচ্ছে অষ্টম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু।

তবে সেতুটি চালুর পর দূরত্ব কমবে বেনাপোল স্থলবন্দর ও পটুয়াখালীর পায়রা বন্দরের। এ রুটে সময় কমবে দেড় থেকে ২ ঘণ্টা।

এদিকে সেতুটি উদ্বোধনের অপেক্ষায় মুখিয়ে আছেন স্থানীয়রা। অপেক্ষা শুধু ক্ষণ গণনার। মাস দুয়েকের মধ্যেই খুলে যাচ্ছে কঁচা নদীর ওপর নির্মিত গুরুত্বপূর্ণ অষ্টম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু।পিরোজপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক মহিউদ্দিন মহারাজ বলেন, এ সেতুর উদ্বোধন হলে বরিশালের সঙ্গে খুলনার যোগাযোগ ভালো হবে।এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে সেতুটির নির্মাণ কাজ।

সরকার ২০১৭ সালের পহেলা অক্টোবর এ নদীর কাউখালীর বেকুটিয়া প্রান্তে ও সদরের কুমিরমারা প্রান্তে শুরু করে ৮ম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু নির্মাণকাজ। ৯৯৮ মিটার দীর্ঘ ও ১৩ দশমিক ৪০মিটার প্রস্থের এ সেতুটির নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ৮০৯ কোটি টাকা।